ঐশ্বরিক’ ক্রীড়া- প্রাঙ্গণ – আমাদের ইডেন

ঐশ্বরিক’ ক্রীড়া- প্রাঙ্গণ – আমাদের ইডেন – কনকনে শীতের কুয়াশা-ভরা সকাল। কোনো মন্ত্রবলে ইডেন উদ্যানের গ্যালারি উৎসাহী ক্রিকেটপ্রেমীদের ভিড়ে ঠাসা। টস্ থেকে উত্তেজনা শুরু। ব্লেজার পরা থাকবেই দুই অধিনায়কের গায়ে, এই মুদ্রা উৎক্ষেপণের সময়। গ্যালারি জুড়ে বিজ্ঞাপনের ছটা লাগা রোদ সামলানো কাগজের শেড, টুপি-চুইংগাম সব মিলিয়ে যেন সাজো সাজো রব। কে যে বেশী উত্তেজিত – মাঠের খেলোয়াড়…
সঞ্জয় সেনগুপ্ত

This entry was posted in Games. Bookmark the permalink.

5 Responses to ঐশ্বরিক’ ক্রীড়া- প্রাঙ্গণ – আমাদের ইডেন

  1. সৌরাংশু says:

    অনেকগুলো স্মৃতি ফিরিয়ে দেবার জন্য ধন্যবাদ। ইডেনে আমি ৮০ থেকে ৯৯ নিয়মিত দর্শক। তারপর ২০০৫-এ একবার গেছিলাম কিন্তু সৌরভহীন ভারতকে দুয়ো দেখে মনে হয়েছিল এ আমার এনা ইডেন নয়। তবে সেলিম মালিকের ৮৯ আর আজহার ছাড়া ইডেন হয় না! পরে লক্ষণ আর রোহিত সেই জায়গা নেবার চেষ্টা করলেও আজহার একজনই।

  2. Sanjay Sengupta says:

    ধন্যবাদ । ইডেনের ইতিহাস নিয়ে বিস্তারিত ভাবে লিখতে গেলে ৪৫০০ শব্দের মধ্যে তা লিপিবদ্ধ করা অসম্ভব । তাই ইচ্ছে থাকলেও আজহার এর কীর্তি ও অন্য কিছু ঘটনা থেকে বিরত থাকতে হয়েছে। সময়ের অভাব ও কর্ম ব্যস্ততাও একটি অন্যতম কারণ । আপনার মতো মনযোগী পাঠকের কাছে আমি ঋণবদ্ধ । নমস্কার ।

  3. Sanjay Sengupta says:

    ১৯৮৭ সালে ইডেনে ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের সেলিম মালিক অপরাজিত ৭২ রান করেছিলেন, ৮৯ নয় ।

  4. Anish Mukhopadhyay says:

    সঞ্জয়বাবু,
    আমি এই লেখাটি পড়ে কতকটা হতাশ।
    আমি বুঝিনি আপনার লেখার ফোকাস ঠিক কী ছিল।শব্দসংখ্যার সীমাবদ্ধতা তো সব জায়গাতেই থাকে।তবুও যে কোন একটি বিষয়ে আলোচনাটা কনভার্জ করলে ভাল হত।খানিক ইডেন আছে,খানিক ধারাবিবরণী আছে,খানিক ক্রীড়া সাহিত্য ও সাংবাদিকতা আছে।ইডেন নিয়ে কিছু বলতে গিয়ে শেষ দুটি বিষয় বাদ দেওয়া অসম্ভব একথা অবশ্যই মানি।কিন্তু তাহলে বলবো শুধু সেটাই ফোকাল পয়েন্ট হতে পারত।
    আরেকটি কথা হল।লেখায় বড় বেশি অতীত প্রাবল্য।সেটাতে আপত্তি নেই।কিন্তু কারুর মনে হতে পারে যে ইডেন মানে আশির দশকের প্রথমার্ধ অবধি যা কিছু।তারপরে আর বিশেষ কিছু নেই।আপনি ২০০১ টেস্টের কথায় এসেছেন কিন্তু সেটাও গুরুত্বের বিচারে আমার কাছে বেশ কম জায়গা পেল।অদ্ভুতভাবে আজহার ও লক্ষণ নিয়েও অত কিছু বলা নেই।নেই কপিলকে নিয়েও কোন স্মৃতি।কপিল এখানে হ্যাটট্রিক করেছিলেন না? ‘নো কপিল নো টেস্ট’ নিয়েও কিছু পাইনি।সানি-শচীন-রাহুলকে নয় ছেড়েই দিলাম।সবথেকে আশ্চর্যকথা সৌরভ এই লেখায় প্রায় অনুপস্থিত।
    ইডেন কাদের কাছে নিজেকে বারেবারে গুটিয়ে নিয়েছে,কাদেরকে উজাড় করে দিয়েছে এমনকিছু নিয়ে গৌতম ভট্টাচার্য কিছু বছর আগে ইডেনের ওপরে আনন্দবাজার পত্রিকায় লিখেছিলেন। তার কথা মনে আসছে।আর বাকি রইলো ববর্তমান ইডেনের চালচিত্র। এর কথাও নেই।এত কিছু একটি লেখায় রাখা বেশ শক্ত বুঝেও বলি সেটা অসম্ভবও ছিল না।
    যারা ইডেনের ইতিহাস জানেন না তাদের কাছে এই লেখা কিছুদূর অবধি রেডি রেফারেন্স হিসেবে থেকে যাবে।কিন্তু আবারো বলি ইডেন মোটেও অতীত নয়।ঘোরতর ঘটমান বর্তমান।

  5. Anish Mukhopadhyay says:

    অত্যন্ত দু:খিত সঞ্জয়বাবু আপনার লেখার শেষাংশ আমি এইমাত্র দেখতে পেলাম। আমার মোবাইল নেটের জন্যই হয়ত এই অংশটি আগে খোলেনি।ফলত:আমি নিচের লিঙ্কদুটিও দেখতে পাইনি।এখন সবটাই দেখতে পাচ্ছি।তাই বেশ কিছু কথা যা ছিল না বলে ভেবেছিলাম এবং মতামতে লিখেছিলাম সেসব প্রত্যাহার করে নিলাম।যথা কপিলের হ্যাটট্রিক,শচীন ও রাহুলের কথা ইত্যাদি।
    ট্র্বেনে বসে পড়ার ফলেই বুঝতে পারলাম নেট বিভ্রান্তিতে সবটা খোলেনি।অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আবারো দু:খিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>