তকাই, তাতাবাবু ও ‘অনর্থে’র ভুবন

তকাই, তাতাবাবু ও ‘অনর্থে’র ভুবন – কতোটা লেখা লিখলে তবে, লেখক বলা যায়/ কতোটা কথা বললে তবে, কথক হবে মানা…….? অনেক লিখে ‘কালজয়ী’ লেখক হবার প্রয়াস অবিরাম দেখা যায়। কখনও পেশা, কখনও নেশা, কখনও শুদ্ধ ভালোবাসা। লেখালিখি করার নানা কারণ থাকে। …
শিবাংশু দে

This entry was posted in literature, Opinion and Discussion. Bookmark the permalink.

6 Responses to তকাই, তাতাবাবু ও ‘অনর্থে’র ভুবন

  1. Ishani says:

    ভালো লাগল | লেখকের সুকুমার রায়ের প্রতি ভালোবাসা আর শ্রদ্ধার প্রকাশ এই লেখায় পেয়ে |

  2. Pallab Kumar Chatterjee says:

    একটা অসাধারণ প্রবন্ধ পড়লাম। লেখককে অজস্র ধন্যবাদ সুকুমার রায়ের সমগ্র জীবনের নির্যাস নিয়ে এরকম এক মনোজ্ঞ রচনার জন্যে।

  3. ARINDAM GUPTA says:

    আবোল তাবোলের ছড়ায় ভুল মানে নুন ছাড়া সেদ্ধ ডিম। তাই শুধরে দিলাম।
    ১. নাইবা তাহার অর্থ হোক্
    ২. আদিম কালের চাঁদিম হিম

  4. Alka Basuchoudhury says:

    মননে ঋদ্ধ আর অভিব্যক্তিতে স্বাদু এমন একটি লেখা পড়তে পেয়ে ভালো লাগলো| লেখাটিতে বুদ্ধদেব বসুর একটি মন্তব্যের উল্লেখ প্রসঙ্গে মনে হলো, কবি সত্যেন দত্ত সম্পর্কে তিনি যা বলেছিলেন, তা একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয়| এই অসাধারণ কবির ছন্দের সৌকর্যে মুগ্ধ হয়ে বাঙ্গলী তাঁর লেখার ভাববস্তুর যথার্থ মূল্যায়ন করেনি| তিনি বড়োদের জন্য লিখলেও ছোটরাই তাঁর লেখা পড়তো, এমন কথা শুধু সরলীকরণ নয়, অশ্রদ্ধেয়ও | অপর পক্ষে সুকুমার ছোটদের জন্য লিখলেও বড়োরাও তাতে রস খুঁজে পান, লেখকের এই মন্তব্য একেবারেই যথার্থ|

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>