কামারপুকুর ও জয়রামবাটি (১৯)

কামারপুকুর ও জয়রামবাটি (১৯): আনুমানিক ১৭৬৪ খৃষ্টাব্দে ভুরসুবো গ্রামে মানিকচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি অত্যন্ত ভক্তিমান ও ধর্মপরায়ণ ছিলেন এবং দাতা হিসাবেও তার যথেষ্ট সুনাম ছিল। এই কারণেই লোকে তাকে মানিকরাজা বলে ডাকত। তিনি গদাধরের পিতা ক্ষুদিরাম চট্টোপাধ্যায়ের খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। এই সূত্র ধরেই বালক গদাধর মাঝে মাঝে তার বাড়ীতে যেতেন। মানিকরাজাও তাকে অত্যন্ত স্নেহ করতেন এবং কয়েকদিন অনুপস্থিত থাকলেই কাউকে পাঠাতেন গদাধরের খবর নেবার জন্য। শোনা যায় তিনি কোন এক সময়ে কলকাতায় গিয়ে মুহুরীর কাজে নিযুক্ত হন। পরে গোলমরিচের ব্যবসায় তার প্রচুর অর্থাগম হয়। ভুরসুবো গ্রামে তার অট্টালিকা ছিল রাজপ্রাসাদের মত। তিনি সুখসায়ের হাতীসায়ের নামে বড় বড় পুষ্করিণী খনন করান। একটি বৃহত্ আমবাগানও তিনি তৈরী করেছিলেন; গদাধর বালক বয়সে তার সঙ্গীদের নিয়ে অনেক সময়েই এখানে বেড়াতে এবং খেলাধূলা করতে আসতেন। কিনে বলেছিলেন, ” তুই যা দেখবার জন্য ব্যাকুল হয়েছিস, তা তুই এখানে বসেই দেখতে দেখতে পাবি”। …
দীপক সেনগুপ্ত

This entry was posted in Religion, Society. Bookmark the permalink.

One Response to কামারপুকুর ও জয়রামবাটি (১৯)

  1. Ajoy Das says:

    Visited this place long time ago…this is a ride in the memory lane.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>