উত্তর আমেরিকার বাঙালী-প্রকাশিত সাময়িক পত্রাদি: কুত্র গচ্ছন্তি?

উত্তর আমেরিকার বাঙালী-প্রকাশিত সাময়িক পত্রাদি: কুত্র গচ্ছন্তি?: পঞ্চাশ বছর আগে প্রথম তরঙ্গটিতে যে প্রবাসী বাঙালীরা উত্তর আমেরিকায় এসে পৌঁছলেন, তাঁরা সঙ্গে করে নিয়ে এলেন তাঁদের সুখাদ্য-, সুসঙ্গ,- সুচারু সঙ্গীত- ও চলচ্চিত্র- এবং সুখপাঠ্য বই- ও পত্রিকা- প্রীতি। যাঁরা আর্থিক স্বাচ্ছল্য কিংবা বড়ো শহর বা শহরতলীতে আশ্রয় পেলেন না, উপকরণের অভাবে তাঁদের মাছের ঝাল-ঝোল-চচ্চড়ি খাবার সাধ আশু বিসর্জন দিতে হোলো।…
দেবজ্যোতি চট্টোপাধ্যায় (সুমিত রায়ের সৌজন্যে)

This entry was posted in Culture, Opinion and Discussion, Uncategorized. Bookmark the permalink.

3 Responses to উত্তর আমেরিকার বাঙালী-প্রকাশিত সাময়িক পত্রাদি: কুত্র গচ্ছন্তি?

  1. Ali says:

    আপনাদের এই প্রতিবেদনটা মন দিয়ে পড়লাম। লেখক যত্ন নিয়ে উত্তর আমেরিকার নানান বাংলা পত্রিকার (অনলাইন এবং কাগজে ছাপা) পত্রিকার খোঁজ দিয়েছেন। যেটা চোখে পড়ল না, সেটা হল বাংলাদেশের কোনও ম্যাগাজিন বা সংবাদপত্রের খবর। ক্যানাডার টরন্টো থেকে বহু বছর ধরেই নানান পত্রিকা ও ম্যাগাজিন প্রকাশিত হয়ে আসছে। নিউ ইয়র্ক থেকেও প্রকাশিত হচ্ছে বেশ কিছু কাগজ। ২০০৮ সাল থেকে অনলাইনে প্রকাশিত ‘দ্য বেঙ্গল টাইমস’ এবং ২০০৯ সাল থেকে প্রকাশিত ‘নতুন দেশ’ খুবই উচ্চমানের সংবাদপত্র। মাসিক ‘পড়শী’ প্রকাশনা শুরু হয় ২০০১ সালে। কিছুদিনের জন্যে বন্ধ থেকে ২০০৯ থেকে এটিও অনলাইন মাসিক পত্রিকা হয়েছে। আমি অবসর-এর নিয়মিত পাঠক। তথ্যভিত্তিক অনলাইন পত্রিকা হিসেবে দু-পার বাঙলাতেই এর পরিচিতি আছে। আমি আশা করব ভবিষ্যতে অবসর-এ বাঙলাদেশের পত্রপত্রিকা সম্পর্কে একটি নিবন্ধ ছাপা হবে।

  2. Debajyoti Chatterji says:

    লেখকের উত্তর: পাঠক আলির মন্তব্যের জন্যে বিশেষ ধন্যবাদ | উনি ঠিকই লক্ষ্য করেছেন যে আমি বাংলাদেশী পত্রিকা এবং সংবাদপত্রের উল্লেখ করি নি | তার প্রধান কারণ হচ্ছে এবিষয়ে আমার ব্যক্তিগত ঘনিষ্ট পরিচয়ের অভাব | কিন্তু আলি হয়েতো লক্ষ্য করেন নি যে প্রবন্ধটিতে আমি লিখেছি: “আমি উত্তর আমেরিকার বাংলাদেশী সমাজ প্রকাশিত কোনো প্রকাশনেরই উল্লেখ করলাম না | আমার আশা রইলো যে এখানকার বৃহত এবং প্রানোছল বাংলাদেশী সমাজের সাহিত্যকৃতি নিয়ে বলবার জন্য ভবিষ্যতে কয়েকজন লেখক এগিয়ে আসবেন |” আমার এই আশা সফল হলে আমার প্রবন্ধের মূল ইচ্ছা পরিপূর্ণ হবে |

  3. Sumit Roy says:

    আলি সায়েব নিজেই লিখুন না, আমরা জানতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>